প্রতিবেশী ভাবীর সাথে কাটানো কয়েকটি মুহূর্ত

It was a sunny Sunday.  I got frustrated because of the heat inside the room and how I was sweating completely. The main reason for that was power cut for the whole day due to transformer maintenance in the locality. My body was completely drenched with sweat.

এটা ছিল একটি রৌদ্রজ্জ্বল রবিবার (ভারতে রবিবার হলো সাপ্তাহিক ছুটি)। ঘরের ভেতরকার গরমের চোটে হতাশ হয়ে পড়েছিলাম এবং পুরোপুরি ঘেমে গিয়েছিলাম। এর পেছনের প্রধান কারণ হলো, এলাকায় ট্রান্সফর্মারে মেরামত কাজ চলায় সারাদিন বিদ্যুৎ ছিল না। আমার পুরো শরীর ঘামে নেয়ে গিয়েছিল।




I felt like drowning inside the water bucket but it was too small to fit me in. I stood below the shower for an hour and stepped out of the bathroom. A wave of steamy air attacked me and I couldn’t breathe. I stepped out to the balcony wearing a small towel above my knee.

মনে চাচ্ছিল বালতির পানিতে ডুব মারি, কিন্তু এটা আমার জন্য একটু ছোট হয়ে গেল। এক ঘণ্টা ধরে ঝরনার পানির নিচে দাঁড়িয়েছিলাম এবং তারপর বাথরুম থেকে বেরিয়ে এলাম। জলীয় বাষ্পপূর্ণ একটি দমকা হাওয়া আমার গায়ে এসে লাগলো, আমি আর শ্বাস নিতে পারছিলাম না। হাঁটুর উপরে একটি ছোট তোয়ালে পরে বারান্দায় চলে আসলাম।

It was good standing at slowly passing by wind and a little relief from the heat. Just then I was aware there was a lady standing near the gate and talking to my house owner and staring at me. First I didn’t know why and what she was staring at. Suddenly I came to my senses.

দাঁড়িয়ে থাকতে ভালোই লাগছিল, কারণ মৃদুমন্দ হাওয়া বইছিল, এতে গরম থেকে কিছুটা স্বস্তি পাওয়া গেল। তখনই টের পেলাম নিচে গেটের কাছে দাঁড়িয়ে এক ভদ্রমহিলা বাড়িওয়ালনির সাথে কথা বলছে এবং আমার দিকে এক নাগাড়ে তাকিয়ে আছে। প্রথমে বুঝতে পারি নি, কেন এবং কীসের দিকে সে এভাবে তাকিয়ে আছে। হঠাৎ আমি সম্বিত ফিরে পেলাম।

She was staring at my manhood as she can clearly see from down as I was wearing a small towel. Suddenly I went inside and felt ashamed. I live on the first floor of the house. It has been 5 years I got settled there. I work in a supermarket as a store manager and earning a five-digit salary, enough to run a family.

সে আমার পুরুষাঙ্গের দিকে তাকিয়ে ছিল, কারণ নিচ থেকে সেটা স্পষ্টভাবে দেখা সম্ভব ছিল, যেহেতু আমি একটি ছোট তোয়ালে পরে ছিলাম। এতে আমি লজ্জা অনুভব করায় তড়িঘড়ি করে ভেতরে চলে গেলাম। আমি বিল্ডিং-এর দুই তলায় থাকি। এখানে থিতু হওয়ার (ভাড়ায় আসার) পর পাঁচ বছর কেটে গেছে। আমি একটি সুপার মার্কেটে দোকানের ম্যানেজার হিসেবে কাজ করি। পাঁচ অঙ্কের বেতন (অর্থাৎকমপক্ষে ১০ হাজার রুপি, বেশিপক্ষে ৯০ বা ৯৫ হাজার রুপি) পাই মাস শেষে, একটি পরিবার চালানোর মতো যা যথেষ্ট।

Sorry forgot to mention. My name is Rahul and am 26 now. I live alone. My parents refused to leave the native place and made me a loner. Daily routine work from morning 8 to evening 7 was boring and also mechanical. Let’s move on the story.

দুঃখিত, উল্লেখ করতে ভুলে গেলাম যে, আমার নাম রাহুল এবং আমার বয়স ২৬। আমি একা থাকি। আমার পিতামাতা গ্রামের বাড়ি ছাড়তে নারাজ, এভাবে আমাকে একাকী বানিয়ে দিল। দৈনন্দিনকার কাজ সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত, যা একঘেঁয়ে ও যান্ত্রিক মনে হয়। যাই হোক, কাহিনীটা বলতে থাকি।

I have never seen that lady before in our area in these 5 years. She is new and our first meet was a little bit of an embarrassment. But I guessed, she must be around 38 – 40 years of age and fair skin tone. Two days after that, I was rushing through the steps as it got late to work.

গত পাঁচ বছরে আমাদের এলাকার কোথাও ঐ মহিলাকে দেখি নি। সে এখানে নবাগত এবং আমাদের দু’জনার প্রথম দেখাটা হলো কিঞ্চিৎ বিব্রতকর। তবে আমার মনে হয়, তার বয়স ৩৮ বা ৪০ এর কাছাকাছি হবে এবং গায়ের রং ছিল ফর্সা। এর দু’দিন পর সিঁড়ি দিয়ে ঊর্ধ্বশ্বাসে নামছিলাম, কারণ কাজে (অফিসে) দেরি হয়ে যাচ্ছিল।

I was knotting my tie and running down the stairs. In the rush, I crashed on to the person climbing up the stairs and it was a hard hit. My head was in pain and I saw the other person also suffering in pain. It’s none other than that lady. She was staring in anger and was about to scold.

গলায় টাই বাঁধতে বাঁধতে সিঁড়ি দিয়ে হুড়মুড় করে নামছিলাম। তাড়াহুড়োর মাঝে সিঁড়ি দিয়ে উঠছিল এমন একজনের সাথে ধাক্কা খেলাম, এটা কঠিন রকম আঘাত ছিল। আমি মাথায় আঘাত পেলাম, অপর ব্যক্তিকেও ব্যথায় কোঁকাতে দেখলাম; এটা ছিল ঐ ভদ্রমহিলা। সে আমার দিকে রাগত ভঙ্গিতে চেয়ে ছিল এবং মনে হলো, এখনই গালাগাল শুরু করবে।

But I said sorry and rushed to office. The pain was there till noon. I reached home late at night at 11 as the store was filled with customers. Tired, I slept off and woke up at 7 in the morning. I went to the balcony. I found the same lady was walking into our compound carrying groceries and climbing the stairs.

কিন্তু আমি ‘সরি’ বলে অফিসের দিকে ছুট লাগালাম। ব্যথাটা দুপুর পর্যন্ত ছিল। রাতে বাসায় ফিরলাম ১১টা বাজে, কারণ দোকানে ভরপুর কাস্টমার ছিল। ক্লান্ত হয়ে ঘুমাতে গেলাম এবং সকাল সাতটায় ঘুম থেকে উঠলাম। বারান্দায় গেলাম; দেখলাম, ঐ মহিলা মুদি জিনিসপত্র নিয়ে বাড়ির মেইন গেট দিয়ে ঢুকে সিঁড়ি দিয়ে ওঠা শুরু করলো।




I rushed to the door and she was walking past my room. I called to her and said sorry. She asked sorry for what and moved on. Later I found she is a relative of my neighbor. She is staying there as she got a job in our town. I was waiting to answer her question and she came to the roof for drying clothes.

আমি দৌঁড়ে গিয়ে দরজা খুলে দাঁড়ালাম, সে আমার রুমের সামনে দিয়ে যাচ্ছিল। আমি তাকে ডেকে সরি বললাম। সে বললো,’সরি কীসের জন্য?’ এবং এরপর চলে গেল। পরে জানতে পারলাম যে, সে আমাদের প্রতিবেশীর এক আত্মীয়া। এই শহরে একটি চাকুরি পেয়েছে সম্প্রতি, তাই সে এখানে থাকা শুরু করেছে। আমি তার প্র্রশ্নের জবাব দেয়ার জন্য অপেক্ষায় ছিলাম এবং কিছুক্ষণ পর সে ছাদে কাপড় শুকাতে আসল।

I was smoking. I answered I was sorry for crashing on to her the day before. Suddenly she asked, “What about Sunday? Won’t you say sorry for that too?” I felt shy and I said, “Sorry for that too.” We introduced ourselves and spoke formally. Then she left the place.

তখন আমি ধুমপান করছিলাম; বললাম, ‘ঐদিন যে আপনার উপর ঝাঁপিয়ে পড়লাম, সেজন্য সরি’। তখন সে হঠাৎ বলে বসলো, ‘আর রবিবারের বেলায়? সেদিনের ঘটনার জন্য সরি বলবেন না?’ আমি লজ্জা অনুভব করলাম; বললাম, ‘ঐ জন্যও সরি’। তখন আমরা একে অপরের সাথে পরিচিত হলাম এবং কিছুক্ষণ ফরমাল (আনুষ্ঠানিক, অর্থাৎ মেপে মেপে বা হিসেব করে) আলাপ করলাম। তারপর সে সেখান থেকে চলে গেল।

That weekend I planned to buy some video cassettes and spend the day watching movies, including adult-only too. Sunday morning, I got up late and refreshed and went down to have tea in the bakery. Malati was walking home from the shop with groceries for the upcoming week.

ঐ সপ্তাহের ছুটির দিন আমি কিছু ভিডিও ক্যাসেট কিনে সারাদিন ছবি দেখে কাটানোর পরিকল্পনা করলাম, প্রাপ্তবয়ষ্ক ভিডিও সহ। রবিবার সকালে ঘুম থেকে দেরি করে উঠলাম, তারপর ফ্রেশ হয়ে নিচে নেমে কাছের চায়ের দোকানে চা পান করতে গেলাম। মালতি (ঐ ভদ্রমহিলার নাম) তখন মুদি দোকান থেকে পরবর্তী সপ্তাহের জন্য মুদি জিনিসপত্র ও খাবারদাবার নিয়ে বাড়ি ফিরছিল।

I thought of helping her. I rushed towards her to lend a hand carrying bag. I carried it to her home. She offered water. I said it’s late for me as I need to prepare lunch as I was starving. She said she has already prepared lunch and she will give some to me.

ভাবলাম তাকে (ভারী জিনিসপত্র বহনে) সাহায্য করি। আমি ছুটে তার দিকে গিয়ে এক হাতের ব্যাগটি নিলাম এবং বাসা পর্যন্ত পৌঁছে দিলাম। সে আমাকে একগ্লাস পানি দিল। আমি বললাম, ‘আমাকে এখন যেতে হবে, দেরি হয়ে যাচ্ছে, দুপুরের খাবার রান্না করতে হবে, অভুক্ত (না খেয়ে) আছি।’ সে বললো, ‘আমি ইতিমধ্যে লাঞ্চ রেঁধেছি’, এই বলে সে আমার সাথে কিছুটা শেয়ার করতে চাইলো।

I hesitated to take it from her but she insisted. So I took it home and started watching a new movie with my main door open. Meantime I was eating the food she gave me. Suddenly a famous song from the film was playing. While crossing my room, she heard the song.

আমি তার থেকে সেটা নিতে ইতস্তত করলাম কিন্তু সে জোর করে হাতে ধরিয়ে দিল। তখন আমি সেটা বাসায় নিয়ে এসে নতুন একটি ছবি (চলচ্চিত্র) দেখা শুরু করলাম, মেইন দরজা খোলা রেখেই। ছবি দেখছিলাম আর খাচ্ছিলাম। হঠাৎ ঐ চলচ্চিত্রের একটি বিখ্যাত গান বাজতে শুরু করলো। সে আমার রুমের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় এটা শুনতে পেল।

So, in a fraction, she entered my room. I was shocked to see her and we all know how a bachelor room is. She said she likes this song very much and she asked whether she can watch the movie with me. I didn’t come out of shock and I shook my head as yes.

এক পলকেই সে আমার রুমে প্রবেশ করলো। আমি তাকে দেখে হতবাক হয়ে গেলাম। আর বোঝেনই তো, ব্যাচেলর বাসার অবস্থা কেমন থাকে! সে বললো, এই গানটা সে খুব পছন্দ করে এবং অামাকে জিজ্ঞেস করলো, আমার সাথে একসাথে বসে ছবিটা দেখতে পারবে কিনা। আমি হতবাক অবস্থা থেকে তখনো বের হই নি; কোনো মতে বললাম ‘হ্যাঁ, দেখেন’।

I rushed to the kitchen, washed my hands and tried to clean the messy room. In a single glance, she commented that she liked my room in a messy way. So I left it like that and we both started watching the movie. She was sitting in my bed and I was sitting on the floor near the TV table.

আমি এক ছুটে রান্নাঘরে গেলাম, হাত ধুলাম এবং এলোমেলো ঘরটি পরিষ্কার করা শুরু করলাম। সে চারপাশটা এক ঝলক দেখে মন্তব্য করলো, রুমের এই এলোমেলো অবস্থাই তার পছন্দ। তাই আমি ঘর গোছানো বাদ দিয়ে বসে পড়ে তার সাথে টিভি দেখা শুরু করলাম। সে বিছানায় বসে ছিল এবং আমি টিভির কাছে মেঝেতে বসে ছিলাম।

I offered her some cold drinks I was had in my fridge. It was evening when the movie got over and she asked what my plan is. I said no plans and will be at home watching another movie. She looked at me and asked whether I can help her find a good hotel to try out dinner that night.

ফ্রিজে রাখা একটি কোল্ড ড্রিংকস তাকে খেতে দিলাম। ছবিটা শেষ হতে হতে সন্ধ্যা হয়ে গেল। তখন সে জিজ্ঞেস করলো, এবার কী করবো। আমি বললাম, কিছুই না; বাসাতেই থাকবো, আরেকটা ছবি দেখবো। তখন সে আমাকে জিজ্ঞেস করলো, তাকে শহরে কোনো ভালো হোটেল খুঁজে দিতে পারবো কিনা, রাতে ভালো-মন্দ খাওয়ার জন্য।

As I am free and wished to accompany her, I readily accepted. She said she will wait for me sharp at 7.30 PM. I went to the bathroom and bathed and cleaned myself. There was an instinct saying this is my lucky day. I groomed myself well and went downstairs.

যেহেতু আমি ফ্রি ছিলাম এবং তার সঙ্গ কামনা করছিলাম, তাই সাথে সাথে রাজি হয়ে গেলাম। সে বললো, সে আমার জন্য সন্ধ্যা ঠিক সাড়ে সাতটায় অপেক্ষা করবে। আমি বাথরুমে ঢুকে গোসল করে ফ্রেশ হয়ে নিলাম। মন বলছিল, আজকের দিনটা আমার জন্য সৌভাগ্যময়। তারপর খুব সাজগোজ করে নিচে গেলাম।

She was waiting in a red saree and like an angel she was. I went to take my bike and she said she is not comfortable with high seated bikes. Instead, she insisted we can go on her bike. She will ride as she wants to memorize the local routes. I sat behind and we started. I guided her and showed her all the shops nearby.

সে একটি লাল শাড়ি পড়েছিল এবং তাকে পরীর মতো দেখাচ্ছিল। আমি আমার বাইক নিতে চাইলাম; কিন্তু সে বললো, উঁচু সিটের বাইকে বসে সে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে না। তাই সে তার বাইক বের করলো; বললো, শহরের রাস্তাঘাট মুখস্ত করতে চায়। আমি তার পেছনে বসলাম এবং সে বাইক চালু করলো। আমি তাকে পথ দেখিয়ে নিয়ে চললাম এবং আশপাশের ভালো ভালো দোকানগুলো চেনালাম।

Her driving was good. But we arrived on a bumpy road which leads to the main road and is a short cut too. She tried moving in gaps but she almost hit all the dents in the road. Every dent made me fall on her.  I was groping her waist a few times for balance.

সে ভালোই চালাচ্ছিল। কিন্তু এরপর আমরা একটা উচুঁ-নিচু রাস্তায় এসে পড়লাম যেটা মেইন রোডে গিয়ে মিশেছে। এটা আবার শর্টকাটও (অর্থাৎ এ রাস্তা দিয়ে গেলে সময় বাঁচবে)। সে গ্যাপগুলোর মাঝখান দিয়ে অর্থাৎ রাস্তার যে অংশগুলো মোটামুটি প্লেইন বা উচুঁ-নিচু কম, সেগুলো দিয়ে বাইক চালানোর চেষ্টা করছিল। তারপরও রাস্তার প্রায় সব খানাখন্দে গিয়েই তার বাইক পড়লো। প্রতিটা খানাখন্দ অতিক্রমের সময় ঝাঁকুনির চোটে আমি তার দেহের উপর পড়ে যাচ্ছিলাম। এমনকি ভারসাম্য রাখার জন্য বেশ কয়েকবার তার কোমড়ও আঁকড়ে ধরলাম।

I know she was enjoying it but she was rushing to reach the main road. ‘Paradise’, the favorite hotel for most of the city was in front of us. The hotel was heavily crowded and we waited to get a table. After some time we got a table and ordered their special menu.

আমি জানি সে এটা উপভোগ করছিল, তারপরও সে মেইন রোডে যাওয়ার জন্য তাড়াহুড়া করছিল। একসময় আমরা ‘প্যারাডাইজ’ নামক একটা হোটেলের সামনে এসে গেলাম, যা শহরের বেশিরভাগ লোকের প্রিয় ছিল। হোটেলটা লোকে লোকারণ্য ছিল, একটা টেবিল খালি পেতে আমাদেরকে অপেক্ষা করতে হয়েছিল। টেবিল পাবার পর সেখানে বসে আমরা অই হোটেলের স্পেশাল মেনু অরডার করলাম।

Food arrived and we both enjoyed a tasty dinner. It was around 9.30 PM when we came out. Since it was night, I insisted I will ride her home. We reached our compound by 10.15 PM and she went straight to her home. She didn’t wait for me or didn’t even say thanks for helping her.

খাবার এসে গেল, আমরা দুজনেই একটি সুস্বাদু ডিনার উপভোগ করলাম। খাওয়া-দাওয়া শেষ হতে সাড়ে নয়টা বেজে গেল, তারপর আমরা বেরিয়ে আসলাম। যেহেতু রাত হয়ে গেছিল, তাই আমি জিদ ধরলাম যে, বাইক আমিই চালাবো। বাসায় পৌছাতে সোয়া দশটা বেজে গেল। তখন সে সোজা তার বাসায় চলে গেল। সে আমার জন্য অপেক্ষাও করলো না, আর আমাকে ধন্যবাদও জানালো না, তাকে হেল্প করার জন্য।

I went home and refreshed and changed to my normal fashion of towel. Around 11.30, I heard my door being knocked and went to check. Malati was standing there in a brown nightie with a bowl in her hand.

আমি বাসায় গিয়ে গোসল করে ফ্রেশ হলাম, আর গোসলের পর যেটা সাধারণত পরি, সেটাই পরলাম, তোয়ালে। সাড়ে এগারোটায় দরজায় নক শুনলাম, দেখতে গেলাম কে। মালতি সেখানে একটি বাদামি নাইটি পরে দাড়িয়ে ছিল, হাতে ছিল একটা খাবারের বোল।

Me: Why are you knocking at this time?
She: I went in a hurry as I wanted to piss. Sorry that I didn’t wait.
Me: It’s ok, I can understand.
She: Instead of Thanks, I brought this. (She handed the bowl to me.)

আমিঃ এখন আবার কেন নক করছেন?

সেঃ তাড়াহুড়া করে চলে গিয়েছিলাম, প্রসাব ধরেছিল তো, তাই। আপনার জন্য অপেক্ষা করি নি, সেজন্য দুঃখিত।

আমিঃ না, ঠিক আছে, আমি বুঝতে পেরেছি।

সেঃ ধন্যবাদ দেয়ার বদলে এটা নিয়ে আসলাম। (বোলটা আমার হাতে ধরিয়ে দিল)

Me: What is in this?
She: A special preparation from me and you will like it.
I opened the bowl and it was gulab jamun drenched in sugar syrup and looked tasty.

আমিঃ এতে কী আছে?

সেঃ বিশেষ একটি খাবার রান্না করেছি, আশা করি তোমার ভালো লাগবে।

আমি বোলটা খুললাম৷ দেখতে পেলাম – গুলাব জামুন, চিনির রসে ভেজানো, বেশ সুস্বাদু দেখাচ্ছিল।

Me: Thanks, and my favorite too.
She: It’s getting late, meet you tomorrow. Goodnight sweet dreams.
Me: Goodnight. She went to her home and I closed the door and came to bed.

আমিঃ ধন্যবাদ, এটা আমারও খুব প্রিয়।

সেঃ দেরি হয়ে যাচ্ছে, কাল দেখা হবে। শুভরাত্রি, মিষ্টি মিষ্টি স্বপ্ন দেখো।

আমিঃ শুভরাত্রি।

সে তার বাসায় চলে গেল। আমি দরজা আটকিয়ে বিছানায় ঘুমাতে গেলাম।

When opened the lid, I found a paper stuck to it. It had her phone number and said thanks. I ate 2 pieces and it was delicious. Soon I dropped a message as ‘Delicious’ in WhatsApp. She was online and immediately replied ‘Thanks & ?’.

আমি ঢাকনাটা খুললাম, এর সাথে একটি কাগজ সংযুক্ত দেখলাম। কাগজটাতে তার ফোন নাম্বার আর ‘ধন্যবাদ’ লেখা ছিল। গুলাব জামুন ২ টুকরো খেলাম, খুবই সুস্বাদু ছিল। শীঘ্রই তার হোয়াটসঅ্যাপে ‘সুস্বাদু’ লিখে একটা মেসেজ পাঠালাম। সে অনলাইনে ছিল এবং সাথে সাথেই জবাব পাঠালো, ‘ধন্যবাদ এবং …?’

Me: Why?
She: What was delicious?
Me: Jamun.
She: Ok but I saw you were eating something else, too.

আমিঃ কেন?

সেঃ কোনটা সুস্বাদু ছিল?

আমিঃ জামুন।

সেঃ ঠিক আছে, কিন্তু আমি তো দেখতে পেলাম তুমি অন্য একটা জিনিসও খাচ্ছিলে।

I realized I was staring at her melons and didn’t see her face the whole time.
Me: Sorry I couldn’t control my heart and stared.
She: It’s ok. it’s casual for guys at your age.
I suddenly remembered that she also was staring at my shaft on the first day.

আমার মনে পড়লো যে, আমি সারাক্ষণই তার স্তনের তাকিয়ে ছিলাম, আর চেহারার দিকে একটুও তাকাই নি।
আমিঃ দুঃখিত, আমি আমার হৃদয় সংবরণ করতে পারি নি। তাই ওভাবে ড্যাব ড্যাব করে তাকিয়ে ছিলাম।
সেঃ না ঠিক আছে, তোমার বয়সী ছেলেদের জন্য এটা স্বাভাবিক।
তখন আমার মনে পড়লো যে, সেও তো প্রথম দিন আমার ডাণ্ডার দিকে একটানা তাকিয়ে ছিল।

Me: You were also eating mine when I saw you first day.
She replied with 2 smiling smileys and said goodnight. I too replied goodnight and slept. Next evening, I returned from the office at 8 and was trying to open the food. I heard my door being knocked.

আমিঃ তুমিও তো আমারটা খাচ্ছিলে, যেদিন তোমায় প্রথম দেখলাম।

সে তখন দুইটা স্মিত হাসির স্মাইলি পাঠিয়ে উত্তর দিল এবং শুভ্ররাত্রি জানাল। আমিও শুভরাত্রি জানিয়ে ঘুমিয়ে পড়লাম। পরের দিন সন্ধ্যায় ৮ টা বাজে অফিস থেকে ফিরলাম। ফ্রেশ হয়ে (দোকান/হোটেল থেকে কিনে আনা) রাতের খাবারটা খোলার চেষ্টা করলাম। দরজায় আবার নক শুনতে পেলাম।

It was her again. This time it’s different and she was wearing a red salwar. She said she was bored as no one was at home. Her relatives went for a funeral and she was left alone. I offered her my food and we both shared it. She insisted to play some movies.

দরজা খুলে দেখলাম, সে এসেছে। এবার তাকে অন্যরকম দেখাচ্ছে, লাল স্যালোয়ার-কামিজ পরে ছিল। সে জানাল, তার বাসায় আর কেউ নেই, একা একা খুব একঘেয়ে লাগছিল। তার আত্মীয়রা তাকে একা রেখে একটি শেষকৃত্যে অংশগ্রহণ করতে গিয়েছিল। তাকে আমার খাবার থেকে কিছুটা অংশ খেতে দিলাম। সে টিভিতে একটা মুভি চালাতে আব্দার করলো।

I played a new Hindi film and it was around 11. We both felt hungry as the food I bought was not enough for 2. I had no snacks either. Just then I remembered her Jamun and said we can have those. I took the bowl and offered her. She took and had one. When she was taking the next Jamun, the syrup fell all over her salwar.

তখন একটা নতুন হিন্দী মুভি চালালাম, সেটা দেখতে দেখতে রাত ১১টা বেজে গেল। দুজনারই খিদে লেগে গিয়েছিল, কারণ রাতের যে খাবারটা দুজনে ভাগ করে খেলাম, সেটা পরিমাণে বেশি ছিল না। ঘরে কোনো হালকা খাবার বা স্ন্যাকসও ছিল না। তখন তার জামুনের কথা মনে পড়লো; বললাম, চলেন ওইগুলা খাই। আমি বোলটা নামিয়ে তাকে খেতে দিলাম, সে এক টুকরা খেল। পরের টুকরা নেওয়ার সময় তার কামিজের সবখানে চিনির সিরা পরে গেল।

She went to the bathroom to clean it. I gave her the towel to dry off. She washed herself up and came out in a completely wet state. She said instead of tap she opened the shower and got wet. I helped her with another towel. She was so wet that her assets were visible like transparent glass.

তখন সে বাথরুমে গেল সেটা পরিস্কার করতে। আমি তাকে তোয়ালে দিলাম মোছার জন্য। সে নিজেকে পরিস্কার করে সেখান থেকে সম্পূর্ণ ভেজা অবস্থায় বের হয়ে আসলো। সে বললো, ট্যাপ ছাড়ার বদলে সে ভুলে শাওয়ার ছেড়ে দিয়েছিল, তাই ভিজে গেল। আমি তাকে আরেকটা তোয়ালে দিলাম। সে এতটা ভিজে গিয়েছিল যে, তার সম্পদগুলো স্বচ্ছ কাচের মতো দেখা যাচ্ছিল।

She was wearing a red bra and white panties. On seeing this, my manhood started rising and I was only in towels. Now she could clearly see my tent and I was trying to hide it. But she saw my shaft was tenting and she was staring at it like a dog waiting to catch the ball.

সে লাল ব্রা আর সাদা প্যান্টি পরেছিল। এটা দেখে আমার পুরুষাঙ্গ দাঁড়িয়ে গেল, তখন আমি কেবল তোয়ালে পরেছিলাম। তাই সে স্পষ্টভাবে আমার তাবু দেখতে পাচ্ছিল, আমি অবশ্য সেটা লুকানোর চেষ্টা করছিলাম। কিন্তু সে দেখতে পেল যে, আমার ডাণ্ডা তাবু তৈরি করে দাঁড়িয়ে আছে; যেটার দিকে সে এমনভাবে তাকিয়ে ছিল, যেমনটা একটি কুকুর বল ধরার জন্য প্রতীক্ষায় থাকে।

I knew this is the day and I am going to be lucky now. She went to the door and locked it and came near me. My heartbeat raised and her eyes were filled with lust. She grabbed my shaft and dragged me to the bedroom. Since I don’t have a cot, the bed was in the ground only.

আমি বুঝতে পারলাম, আজকেই সেই বিশেষ দিন; আজকে আমার ভাগ্য খুলতে যাচ্ছে। সে গিয়ে দরজা বন্ধ করে আমার কাছে আসলো। আমার হৃত্স্পন্দন বেড়ে গেল, আমি তার চোখে কামনা দেখতে পেলাম। সে আমার ডাণ্ডা মুঠো করে ধরলো এবং আমাকে টেনে বেডরুমে নিয়ে গেল। আমার কোনো খাট ছিল না, বিছানা ছিল মেঝেতেই।