দুনিয়াটা অত্যাচারীতে ভরা

ছোটকাল থেকে মা অত্যাচার করতো
শারীরিক আর মানসিক
তারপর ভাইদেরকে অত্যাচারের দায়িত্ব দিল
বড় আর ছোট ভাই অত্যাচার করেছে
দীর্ঘ ত্রিশ-পয়ত্রিশ বছর যাবৎ
আমি কামাই করে ওদেরকে খাওয়াতাম
তাদের পড়াশুনার পিছনে লক্ষ লক্ষ টাকা খরচ করেছি
বিনিময়ে পেয়েছি কেবল হুমকি আর অত্যাচার
তাই অবশেষে তাদেরকে ছেড়ে আসলাম
এখন মুখও দেখি না ওদের
টাকাপয়সা পাঠালেও তাদের সাথে বলি না কথা।

ভাবলাম, বাঁচা গেল
কিন্তু কোথায় বাঁচলাম?!
এবার ডায়াবেটিক বউ অত্যাচার শুরু করলো
তার চান্দি থাকে গরম
আর কথায় কথায় আমাকে কোপাতে আসে
অন্যের সামনে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করাই
যেন তার জীবনের লক্ষ্য

এতো গেল পরিবারের কথা
পরিবারের বাইরের লোকজনও অত্যাচার করে
অত্যাচারী হতে ধার্মিক বা অধার্মিক লাগে না
অত্যাচার এমন একটা পুরানো শিল্প
যা ধার্মিকেরাও ভালোই পারে
তাইতো কওমী আবাসিক মাদ্রাসার তরুণ ছাত্র
আমার বাড়িতে ঢিল ছোঁড়ে
আর তার বাপ চ্যালেঞ্জ করে বলে
‘কী করবেন আপনি?’
থানা-পুলিশের কথা মনে করিয়ে দিলে
তারা আমাকে সপরিবারে এলাকাছাড়া করার হুমকি দেয়
এতো যেন, ‘চুরি তো চুরি
তার ওপর সিনাজুরি’

দেখতে পেলাম, বিধাতার এই দুনিয়াটা
অত্যাচারীতে ভরা
তাই তাকে প্রশ্ন করতে চাই,
‘কেন পাঠালে এই অধম দুনিয়ায়?’
উত্তরে বিধাতা বলে,
আমিই নাকি পাঠাতে অনুরোধ করেছিলাম
এটা সত্যিই হাস্যকর
আসলে বিধাতা নিজেই একজন অত্যাচারী
তাই তিনি নিষ্ঠুর পৃথিবীতে মানুষকে পাঠিয়ে
কষ্ট দিচ্ছেন
শুধু মানুষ নয়, আরো কত জীবকে কষ্ট দিচ্ছেন
ওয়েল, ওয়েট, ওয়েট
এসব কী বলছি আমি?!
আমি তো নাস্তিক
বিধাতাকে দোষ কেন দিচ্ছি?!
তাকে তো আমি বিশ্বাসই করি না
তিনি কি আদৌ আছেন?
নাকি উপরে বসে কেবল তামাশা দেখছেন?

Leave a Comment

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.